গ্লুকোমাঃ নীরব অন্ধত্বের প্রধান কারণ

গ্লুকোমা এমন একটি রোগ যাকে National  Eye Institute (NEI)  অন্ধত্বের ২য় বৃহত্তম কারণ বলে দাবী করে। সারা বিশ্বের প্রায় ৬৭ মিলিয়ন লোক গ্লুকোমায় আক্রান্ত। বাংলাদেশের ৩৫ উর্ধ দুই তৃতীয়াংশ মানুষ এই রোগে ভুগছেন। তবে দুঃখ জনক ভাবে তাদের ৯৬ শতাংশই জানেননা যে তাদের এই রোগ আছে। যার প্রধান কারন হল এই রোগের প্রকট কোন উপসর্গ দেখা যায়না।

       Photo Source: Pixabay.com

গ্লুকোমা কি  ?

গ্লুকোমা শব্দটি প্রাচীন গ্রীক Glaulos শব্দ থেকে এসেছে যার অর্থ নীল, সবুজ বা ধূসর। আমদের চোখে এ্যাকোয়াস হিউমার নামক এক ধরনের জলীয় তরল থাকে যার অনিয়ন্ত্রণতা চোখের অভ্যন্তরীণ চাপের ভারসাম্য নষ্ট করে ফলে চোখের আলোক সংবেদী প্রধান অপটিক স্নায়ু ধীরে ধীরে তার কার্য ক্ষমতা হারায়। এতে করে প্রাথমিকভাবে আমাদের দৃষ্টিশক্তি সংকীর্ণ হতে শুরু করে এবং পরবর্তীকাল অন্ধত্বে পৌঁছে যায়।

গ্লুকোমা মূলত ২ ধরনের হয়ে থাকে:

 (২)

গ্লুকোমা হওয়া ৯০% মানুষের open-angle গ্লুকোমা হয়। এটাকে open-angle বলা হয়, কারণ এতে ড্রেইনেজ চ্যানেলে একটা স্পষ্ট ফাকা থাকে যার ভেতরে চোখের তৈরি করা তরল পদার্থ আটকা পড়ে। এটা খুব আস্তে আস্তে হয়। প্রথম প্রথম আপনি কোন লক্ষণ  বুঝতে পারবেননা।

এটা ধীরে ধীরে বা খুব দ্রুত হয় এবং হলে সাথে সাথে ডাক্তারের কাছে যেতে হয়। যাদের ড্রেইনেজ চ্যানেল সম্পূর্ণ বন্ধ না হয়ে অল্প একটু ফাকা থাকে, তাদের সাধারণত এটা হয়। ড্রেইনেজ চ্যানেলে অল্প একটু ফাকা থাকার কারণে চোখের ভিতরে দ্রুত প্রেশার বাড়া শুরু হয় এবং একটু পড়ে চোখ দিয়ে তরল পদার্থ বের হওয়া শুরু হয়। এটি সাধারণত মহিলাদের বেশি হয়ে থাকে।

কাদের গ্লুকোমা হয়ার ঝুকি আছেঃ

(১) ৪০ উর্ধবয়সী।

(২) বংশগত গ্লুকোমা রোগ যাদের আছে।

(৩) উচ্চ অক্ষিচাপ থাকা।

(৪) চোখে ক্ষত থাকা।

(৫) চোখে আঘাত পেলে।

প্রতিকারের উপায় :

প্রাথমিক অবস্থায় চিকিৎসা শুরু করলে দৃষ্টি শক্তি অটুট রাখা সম্ভব। সারা বিশ্বে ছানির পর গুলকোমাক অন্ধত্বের প্রধান কারণ হিসেবে ধরা হয়। তবে কিছু কিছু বিষয় মেনে চললে গুলকোমা রোগের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব।

(১) চোখে বারবার ঠান্ডা পানির ঝাপটা দেওয়া।

(২) চোখের উপর অতিরিক্ত চাপ প্রয়োগ না করা।

(৩) কাজের ফাকে ফাকে কিছুক্ষণের জন্য চোখকে বিশ্রাম দেওয়া।

 

Feature Photo Source: Whiteriverfamilyeyecare.com

 

Leave a comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *