সফল মানুষদের প্রতিদিনকার পাঁচটি অভ্যাস

আমাদের এই ছোট্ট ক্ষণস্থায়ী জীবনে আমরা সবাই সফল হতে চাই। আমরা সফল হওয়ার জন্য কত সাধনাই না করি। কিন্তু সফল হওয়ার জন্য থাকা চাই কিছু ভালো অভ্যাস। বাজে অভ্যাসগুলো স্বভাবতই আমাদেরকে  বারবার ব্যর্থতার সাগরে ডুবাবে কিন্তু ভালো অভ্যাসগুলো সফল হতে না পারলেও সর্বদা সবসময় আমাদের অণুপ্রেরণা জুগিয়ে যাবে।

সফল মানুষগুলো সব দিক থেকেই কখনো পারফেক্ট না হলেও তাদের রোজকার কিছু অভ্যাস হয়তো বদলে দিবে আমাদের চিন্তা-ভাবনা, নতুন করে অণুপ্রেরণা জোগাবে আবার মাঠে নামার।

তো জেনে নেওয়া যাক সফল ব্যাক্তিদের রোজকার কিছু চমৎকার অভ্যাস যা অনুসরনের মাধ্যমে হয়তো আমরাও ফিরে পাবো কাজ করার সজীবতা আর স্পৃহা।

  • ভোরবেলা ঘুম থেকে ওঠা

আজকালকার দিনে আমাদের সবারই একটা বদ অভ্যাস হচ্ছে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা। কখনো কখনো তো আবার ঘুম থেকে উঠতে উঠতে ১১ – ১২ টা বেজে যায়।

এতে করে যা হয় তা হল আমরা সকালের চমৎকার একটা আবহাওয়া উপভোগ করা থেকে বঞ্চিত হই। একদম ভোরবেলা, ফজরের পরে যে অসাধারণ প্রাকৃতিক আবহাওয়া থাকে তা দিনের অন্য সময় কখনোই পাওয়া যায় না। আর তাছাড়া এই আবহাওয়া উপভোগ আমাদের সারাদিনের কাজের জন্যও মানষিকভাবে প্রস্তুত করবে। অপরদিকে দেরিতে ঘুম থেকে উঠলে একদিকে যেমন অলসতাও বাড়ে তেমনি মন-মেজাজও খিটখিটে হয়ে যায়।

     Photo Source: Pinterest.com

তাই আমাদের টার্গেট থাকবে প্রতিদিন ভোরবেলা ঘুম থেকে জেগে ফজর সালাত আদায় করে, একটুখানি আল কুরআন তিলওয়াত করে, হাটাহাটি বা ব্যায়াম করে দিন শুরু করার অভ্যাস তৈরী করার।

  • ঘুমানোর আগে আগামীদিনের পরিকল্পনা করা

আমরা যদি সারাদিনে কি কি করবো তার একটা নোট প্ল্যান করে নেই তাহলে কাজগুলো সম্পন্ন করতে খুব সহজ হয়ে যাবে। অগোছালো অগোছালো ভাবটা চলে যাবে এবং দৈনন্দিন জীবনের কাজগুলো একটা শৃংখলায় চলে আসবে।

    Photo Source: Pixabay.com

এজন্য আমরা যা করতে পারি তা হল প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে আগামী দিন কি কি করবো তার একটা লিস্ট করে নোটপ্যাডে লিখে রাখতে পারি যেমনটা সফল ব্যাক্তিরা করে থাকে। এভাবে পরিকল্পনা করে কাজ করলে যে সবকিছু একদম পারফক্টলি হবে এমন কোন কথা নেই তবে এমনটা করলে প্রতিদিনকার কাজগুলো খুব সহজভাবে শেষ করা যাবে।

  • বই পড়া

আমাদের দেশের ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুলের পাঠ্যবই পড়তে পড়তে এতোটাই কাহিল হয়ে যায় যে তারা আর অন্য বই পড়ার সময়ই পায়না। কিন্তু এটা একদমই ঠিক না। আমরা যদি সফল মানুষদের দিকে তাকাই, ইসলামিক স্কলার থেকে শুরু করে ব্যবসায়ী, রাজনীতিক, প্রফেসর, উদ্যোক্তা- এরা সবাই কিন্তু প্রচুর বই পড়ে।

   Photo Source: Pixabay.com

সাধারণত সফল মানুষেরা নিজেদের সবসময় সজীব রাখতে, জ্ঞানের ভাণ্ডার সমৃদ্ধ রাখতে ও অণুপ্রেরণা জোগাতে বই পড়ে। বিখ্যাত বিখ্যাত আলেম ওলামাদের দিন শুরু হয় আল কুরআন তিলওয়াত এর মধ্য দিয়ে।

আমরা সবাই টেক লিজেন্ড ও সফল উদ্যোক্তা এলন মাস্ককে চিনি। এলন মাস্ক প্রতিদিন বই পড়ার পিছনেই চার ঘণ্টা ব্যায় করে। এবার তাহলে নিজেরাই বুঝে নেও বই পড়ার গুরুত্ব কতটুকু !

  • নিজের সুস্বাস্থ্যের দিক খেয়াল রাখা

আমরা অনেক সময় পড়াশোনা করতে গিয়ে, নিজের প্রফেশনাল লাইফের কাজ সম্পন্ন করতে গিয়ে এতোটাই বেশি পরিশ্রম করে ফেলি যে নিজে্র সু-স্বাস্থ্যের দিক একদম খেয়ালই রাখিনা। এটাও একটা বদ অভ্যাস। সফল ব্যাক্তিরা অনেক পরিশ্রম করলেও তারা কিন্তু ঠিকই তাদের স্বাস্থ্যের যত্ন নেয়।

আজে বাজে খাবার না খেয়ে তারা পরিমিত খাবার খায়। তাদের খাবারের তালিকায় থাকে স্বসাথ্য সম্মত খাবার। এছাড়াও সফল ব্যাক্তিরা প্রতিদিন ব্যায়াম করে শারীরিক ভারসাম্য রক্ষা করে।

  • প্রত্যেকটা দিনকেই জীবনের শেষ দিন মনে করা

একটা কাজ করতে হবে। আমরা ভাবলাম কাজটা আজ না করে বরং আগামীকাল করি। না হয় অমুক সময় করি। আর অমুক সময় করবো,তমুক সময় করবো এরকম করতে করতে দেখা যায় যে কাজটাই আর সময়মত করা হয়ে ওঠে না। সত্যিকার্থে এটাও আমাদের একটা বাজে অভ্যাস। এক সেকেন্ড পর কি হবে সেটা একমাত্র মহান আল্লাহ ছাড়া আর কেউই বলতে পারবেনা। তাই সময়ের কাজ যথা সময়ে করার অভ্যাসটা নিজের আয়ত্বে আনাটাও খুব জরুরী।

এই পৃথিবীতে যারা পাহাড়ের চূড়ায় উঠতে পেরেছে , সফলতার হাসি হাসতে পেরেছে তাদের প্রত্যেকেরই সময়ের কাজ সময়ে করার ভালো এই অভ্যাসের চর্চা করতো।

তাই আর দেরি না করে এখন থেকেই নিজের বদ অভ্যাসগুলো ঝেড়ে ফেলে ভালো অভ্যাসগুলো নিজের আয়ত্বে আনার চেষ্টা করতে থাকি।

 

সাকসেস ডট কম এবং নিজের পর্যবেক্ষণ অবলম্বনে লেখাটি লেখা হয়েছে।

Feature Photo Source: Pixabay.com

Leave a comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *